ঢাকা, রবিবার, ২৮শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

মোবাইল কোর্টের ভয়ে সড়কে কমেছে বাস, ভোগান্তিতে যাত্রীরা

ডিজেলের দাম বাড়ার পর বেড়েছে বাসের ভাড়া। ডিজেলচালিত বর্ধিত বাড়া আদায় করছে গ্যাসচালিত বাসও। তাই নিয়মিত মোবাইল কোর্ট চলায় সড়কে কমে গেছে বাসের সংখ্যা। এতে পর্যাপ্ত বাস না পেয়ে ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা।
অনেকে বাস না পেয়ে অনেকে হেঁটে নিজ গন্তব্যে যাচ্ছেন। আবার সিএনজিচালিত অটোরিকশা ভাড়া করে যাচ্ছেন কেউ কেউ।

মিরপুর থেকে রাজধানীর বিভিন্ন গন্তব্যে যাত্রীবাহী বাস চলাচল কমে যাওয়ার চিত্র দেখা গেছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, মিরপুর-১, ১০, ১১, ১২, কালশী, পূরবী, সিরামিক রোডে যাত্রীবাহী বাস চলাচল কম। রাস্তার দুপাশে ফুটপাতে হেঁটে যাচ্ছেন শতশত মানুষ। তবে মিরপুর ১২ নম্বরের প্রধান সড়কে বাস পার্কিং করে রাখা হয়েছে। একইভাবে উত্তরা এবং গুলশান থেকেও মিরপুরগামী বাস চলাচল কমে গেছে।

গুলশান থেকে মিরপুর ১০ নম্বরে যেতে বাসের অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে থাকা রাকিবুল ইসলাম বলেন, অন্যান্য দিন কিছুক্ষণ পরপর মিরপুরের বাস পেতাম। কিন্তু আজ বাসের দেখা নেই। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানের খবর পেয়ে মিরপুরগামী বাস কমে গেছে। পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের হয়রানি বন্ধে সরকারকে আরো কঠোর হওয়া উচিত।

যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের আন্দোলনের ফলে সরকার বাসভাড়া বাড়িয়েছে। কিন্তু তার চেয়ে বেশি ভাড়া নিচ্ছেন তারা। এর সঙ্গে যাত্রী হয়রানিও বেড়েছে। এসব বিষয় নিয়ে আগামীকাল সংবাদ সম্মেলন করা হবে।

পল্লবী থানার ওসি পারভেজ ইসলাম বলেন, পল্লবী এলাকায় বাস চলছে। তবে অন্যান্য দিনের চেয়ে গাড়ির সংখ্যা কম।