দেরি করে ফেরি ছাড়ায় অ্যাম্বুলেন্সে রোগীর মৃত্যু: তদন্ত কমিটি

সোমবার, ২৯ জুলাই ২০১৯ | ৪:৫২ অপরাহ্ণ | 72 বার

দেরি করে ফেরি ছাড়ায় অ্যাম্বুলেন্সে রোগীর মৃত্যু: তদন্ত কমিটি

অতিরিক্ত সচিবের জন্য অপেক্ষা করতে গিয়ে ফেরি ছাড়তে দেরি হওয়ায় অ্যাম্বুলেন্সে থাকা গুরুতর আহত এক স্কুলছাত্রের মৃত্যুর ঘটনায় দুই সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়। আগামী সাত কার্যদিবসের মধ্যে কমিটিকে মন্ত্রণালয়ের কাছে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

সোমবার (২৯ জুলাই) নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এতে আরও দাবি করা হয়েছে, গণমাধ্যমে ওই অতিরিক্ত সচিবকে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ে কর্মরত বলা হলেও এ নামে এই মন্ত্রণালয়ে কোনো অতিরিক্ত সচিব নেই।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দুই সদস্যের তদন্ত কমিটির প্রধান করা হয়েছে মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব শাহনওয়াজ দিলরুবা খানকে। কমিটির আরেক সদস্য হলেন— নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব শাহ হাবিবুর রহমান হাকিম। কমিটি আগামী সাত কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে দাখিল করবে। তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

ফেরি দেরি করে ছাড়ায় অ্যাম্বুলেন্সে রোগীর মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে একটি বেসরকারি টেলিভিশনসহ দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবর ‘সম্পূর্ণ সঠিক নয়’ বলেও দাবি করা হয়েছে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে। এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) ফেরিতে যাত্রী ও পণ্য পরিবহনের সেবায় নিয়োজিত। বিআইডব্লিউটিসি বর্তমানে প্রবল স্রোতের মধ্যেও ফেরি সার্ভিস চালু রেখেছে। তারা সবসময় অ্যাম্বুলেন্সসহ অন্যান্য যানবাহন পারাপারে জরুরি সেবা দিয়ে থাকে।বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সংবাদে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আব্দুস সবুর মন্ডল ও তার গাড়ির বিষয়ে বলা হয়েছে। প্রকৃতপক্ষে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় ও এর অধীন সংস্থায় আব্দুস সবুর মন্ডল নামে কোনো অতিরিক্ত সচিব বা যুগ্মসচিব বা কোনো কর্মকর্তা নেই। সেদিন নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় ও এর অধীন সংস্থার ওই নামে কেউ কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া রুটে ফেরি পারাপার হননি।

বিভিন্ন জাতীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জানা যায়, নড়াইলের কালিয়া এলাকায় গত বুধবার (২৪ জুলাই) মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় আহত হয় ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী তিতাস ঘোষ। তাকে খুলনার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। উন্নত চিকিৎসার জন্য বৃহস্পতিবার তাকে নেওয়া হচ্ছিল ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। চিকিৎসা অব্যাহত রেখে দ্রুত ঢাকায় পৌঁছাতে প্রায় ৫০ হাজার টাকায় আইসিইউ সুবিধা সম্বলিত অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করা হয়।

তিতাসকে বহনকারী অ্যাম্বুলেন্সটি বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ী ১ নম্বর ফেরি ঘাটে পৌঁছায়। ওই সময় একটি ফেরি ঘাটেই ছিল। তবে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রকল্পের অতিরিক্ত সচিব আব্দুস ছবুর মন্ডল এই ঘাট দিয়ে ফেরি পারাপার হবেন— এমন কারণ দেখিয়ে ফেরিটি ঘাট থেকে ছেড়ে যায়নি। প্রায় তিন ঘণ্টা পর ফেরিটি ছাড়লেও অন্য প্রান্তে পৌঁছানোর আগেই অ্যাম্বুলেন্সে থাকা তিতাস মারা যায়।

এক মাসের শিশুকে রাস্তায় ফেলে গেলেন মা, কোলে তুলে নিলেন ডিসি

Design & Developed by: Ifad Technology