‘নার্সবান্ধব’ মহাপরিচালককে অপসারণের ষড়যন্ত্র

সোমবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৯:৪২ পূর্বাহ্ণ | 8 বার

‘নার্সবান্ধব’ মহাপরিচালককে অপসারণের ষড়যন্ত্র

‘নার্সিং অধিদফতরে উৎকোচ ছাড়া বদলি ও পদায়ন হয় না’ এমন অভিযোগ গত কয়েক বছর ধরে রাজধানীসহ সারাদেশের নার্সদের মুখে মুখে প্রচলিত ছিল। বদলি ও পদায়নের জন্য যথাযথ প্রক্রিয়ায় আবেদন করলেও নার্সিং অধিদফতর কিংবা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কিছু কর্মকর্তার টেবিলে মাসের পর মাস আবেদনের ফাইল পড়ে থাকত বলে অভিযোগ।

তবে নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে শুধু উৎকোচ দিলেই স্বল্পসময়ে মিলে যেত কাঙ্ক্ষিত বদলি বা পদায়ন। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও নার্সিং অধিদফতরের কিছু অসৎ কর্মকর্তা ও কর্মচারীর মদতে কথিত নার্স নেতাদের সমন্বয়ে গঠিত একটি সিন্ডিকেট চক্র বদলি ও পদায়নের নামে প্রতি বছর এভাবে হাতিয়ে নিত কোটি কোটি টাকা।

জানা গেছে, সম্প্রতি নার্সিং অফিদফতরের মহাপরিচালক পদে যোগদান করেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আলম আরা বেগম। তিনি কর্মস্থলে যোগদানের কিছুদিনের মধ্যেই দেশের সকল নার্সের কাছে ‘নার্সবান্ধব’ মহাপরিচালক হিসেবে পরিচিতি পান। তিনি নিয়োগ পাওয়ার পর কোনো ঝামেলা ছাড়াই বদলি ও পদায়ন পেতে থাকেন নার্সরা। তবে এ সৎ মহাপরিচালককে অপসারণে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে সেই অসাধু সিন্ডিকেট চক্রটি।

অধিদফতর সূত্রে জানা যায়, বর্তমন মহাপরিচালক যোগদান করেই অধস্তন কর্মকর্তাদের বলে দেন, কোনো নার্স বদলি বা পদায়ন করতে চাইলে যে প্রতিষ্ঠানে চাকরি করছে, সেই প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তার সুপারিশসহ নার্সিং অধিদফতরে আবেদন করলে পদশূন্য থাকা সাপেক্ষে বদলি করা হবে। এ জন্য যথাযথ পদ্ধতি মেনে একটি আবেদনই যথেষ্ট। কষ্ট করে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে নার্সিং অধিদফতরে কাউকে আসতে হবে না। তাছাড়া নার্স বদলির জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়েও ফাইল পাঠানোর প্রয়োজন নেই বলে সাফ জানিয়ে দেন তিনি। এতে ভোগান্তি ছাড়াই পাঁচ শতাধিক নার্স দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বদলি হন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক প্রতিষ্ঠানের বেশ কয়েকজন নার্স বলেন, আলম আরা বেগমের মতো এমন ‘জনবান্ধব’ নার্সিং মহাপরিচালক আর কখনও পাওয়া যাবে কিনা সন্দেহ। নার্সদের বর্তমানে ঘুষ ছাড়া বদলি ও পদায়ন হচ্ছে। তিনি যোগদানের পর পাঁচ শতাধিক নার্সের বদলি ও পদায়নে কোনো টাকা-পয়সা লেনদেন হয়নি।

তবে বর্তমান মহাপরিচালক আলম আরা বেগমের এমন কর্মকাণ্ডে গাত্রদাহ বাড়তে থাকে সেই অসাধু চক্রটির। এজন্য তাকে বদলি করতে উঠেপড়ে লাগে। টাকা-পয়সা ছাড়া বদলি ও পদায়নই যেন কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে মহাপরিচালকের। এ চক্রের সঙ্গে মন্ত্রণালয়ের একজন উপসচিব ও একজন প্রভাবশালী চিকিৎসক নেতা জড়িত বলে জানান তারা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, চক্রটি স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে এই বলে ভুল বুঝাচ্ছেন যে, নার্স বদলির জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কমিটি থাকলেও সে কমিটিকে পাশ কাটিয়ে নার্সিং মহাপরিচালক বদলি ও পদায়ন করছেন। এতে মহাপরিচালকের বদলির সম্ভাবনা প্রবল হয়ে দেখা দিয়েছে।

তবে চক্রটির এমন কর্মকাণ্ডে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন একাধিক নার্স। তারা বলেন, এখনকার মহাপরিচালক একজন শতভাগ সৎ মানুষ। যাদের বাড়তি ইনকাম বন্ধ হয়ে গেছে তারাই এবার তার বিরুদ্ধে উঠেপড়ে লেগেছে।

সার্বিক বিষয়ে জানতে চাইলে নার্সিং অধিদফতরের মহাপরিচালক আলম আরা বেগম বলেন, যথাযথ নিয়মনীতি মেনে নার্সদের বদলি ও পদায়ন করা হচ্ছে। প্রতিটি বদলি-পদায়নের যথাযথ প্রমাণপত্র রাখা হচ্ছে। বদলি ও পদায়নের জন্য নার্সদের একটি টাকাও খরচের প্রয়োজন নেই।

‘একটি মহল আপনার বিরুদ্ধে উঠেপড়ে লেগেছে এবং সরিয়ে দেয়ার অপচেষ্টা চালাচ্ছে’- এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কানে এমন কথা এসেছে। কিন্তু সত্য-মিথ্যা জানি না।

তিনি বলেন, আমি সততার সঙ্গে সরকারি দায়িত্ব পালন করি। সততার সঙ্গে দায়িত্ব পালন যদি অপরাধ হয়, আর সে অপরাধে যদি বদলি করা হয় তাহলে তা হাসিমুখে মেনে নেব।

নার্সিং অধিদফতরে টাকা-পয়সার লেনদেন ছাড়া বদলি-পদায়ন যে হয় তার প্রমাণ যতক্ষণ এ পদে আছেন ততদিন রেখে যাবেন বলেও দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

মিয়ানমারে ভারতীয় সাবমেরিন : বদলে যাচ্ছে দৃশ্যপট

Design & Developed by: Ifad Technology