ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে বেড়েছে সেবার মান

এক সময়ে দালালদের হাতে জিম্মি থাকা কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের চিত্র এখন বদলে গেছে,বেড়েছে সেবার মান।

মাত্র কয়েক মাসের প্রচেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে এসেছে দালালদের দৌরাত্ম। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষন করতে পাসপোর্ট অফিস এলাকায় সরেজমিনে গেলে স্থানীয় এলাকাবাসী জানান, কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে নতুন সহকারী পরিচালক গত ৭ অক্টোবর যোগদানের পর থেকে এ অফিসের চিত্র বদলে যেথে শুরু করে। পাসর্পোট নাগরিকের অধিকার-নি:স্বার্থ সেবাই অঙ্গীকার-এ শ্লোগানকে অনুসরন করে জনগনের সচেতনতা বৃদ্ধি ও দালাল মুক্ত পাসর্পোট অফিস গড়ে তোলতে কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস প্রসংশনীয় উদ্যোগ নিয়েছে।

দালালদের বিরুদ্ধে বর্তমান কর্মকর্তার কঠোর পদক্ষেপে ফলে ইতিমধ্যে কয়েকজন দালালকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকী দালালদেরকে গ্রেফতারের জন্যে কঠোর নজরদারী অব্যাহত রয়েছে। এছাড়া সরকারি রেভিনিউ অর্জনে কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস অত্যন্ত প্রশংসা অর্জন করে চলছে। জনগণের দোরগোড়ায় পাসপোর্ট সেবা পৌছে দেয়ার লক্ষ্যে ও সেবার মান উন্নয়নে কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস নবযাত্র শুরু করেছে।

এক সময়ে যে অফিসটিতে ছিল দালাল চক্রের দৌরাত্ম ,এখন সেখানে আবেদনকারীরাই স্ব-শরীরে উপস্থিত হয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে নিজেরাই আবেদন ফরম জমা দিচ্ছেন। একজন ব্যাক্তিকে পাসর্পোটের্র জন্যে আবেদন জমা দেয়া থেকে শুর করে সকল কাজ আবেদনকারী নিজেই শেষে করেন। যার ফলে গ্রাহকরা বিভিন্ন ধরনের হয়রানি থেকে রেহাই পাচ্ছে। আগে এ সব কাজ করে দিয়েছে দালালচক্র। তাই অফিসটি ছিল দালালদের স্বর্গরাজ্য। জেলা শহরের অদূরে প্রাকৃতিক পরিবেশে লতিবাবাদ ইউনিয়নের কাটাবাড়িয়া মৌজায় কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসটির অবস্থান। ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রগতির সাথে সাথে পাসর্পোটের সেবার মান বৃদ্ধির লক্ষ্যে গৃহিত নতুন উদ্যোগ অতুলনীয়। দ্রত পাসপোর্ট প্রাপ্তি ও ভোগান্তিমুক্ত সেবা প্রদানের লক্ষ্যে গৃহিত উদ্যোগে সাধারন মানুষ এখন সুফল পাচ্ছে। এ অফিসের সহকারী পরিচালক দক্ষতার সাথে পাসপোর্ট প্রত্যাশীদের সেবা প্রদান করে যাচ্ছেন। কোন ব্যাক্তি পাসর্পোট গ্রহণ করতে এসে যাতে হয়রানির শিকার না হয় সেজন্য তিনি অফিসের প্রতিটা বিভাগ দক্ষতার সাথে পযবেক্ষণ করেন এবং নিয়মিত গণশুনানীর ব্যবস্থা ও অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে মিটিং করে দিক নিদের্শনা দিয়ে থাকেন । হজ্ব ও ওমরা পালনকারীদের জন্য ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী সহকারি পরিচালক সার্বক্ষনিক প্রচেষ্টার মাধ্যমে দ্রত সেবা দান করে যাচ্ছেন।

সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ আনিসুর রহমান এ প্রতিবেদককে জানান, কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস এখন শতভাগ দালালমুক্ত, আমরা দালালদের চিহ্নিত করেছি। পাসপোর্ট করতে দালালের শরণাপন্ন না হতে তিনি সবার প্রতি আহব্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন প্রশাসনিক সহযেগিতা অব্যাহত থাকলে জনগনকে শতভাগ সেবা প্রদানে স্বচ্ছ ও নিভূল কাজ করাই তার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য।