ঢাকা, বুধবার, ৫ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২০শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সীমান্ত দিয়ে মিয়ানমারের কোনো নাগরিককে বাংলাদেশে ঢুকতে দেওয়া হবে না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ চলমান সংঘাতের জেরে সেদেশের আর কোনো নাগরিককে সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে ঢুকতে দেওয়া হবে না।
শনিবার সন্ধ্যায় সিলেটের লাক্কতুরা চা বাগানে চা-শ্রমিকদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর ভিডিও কনফারেন্স অনুষ্ঠান শেষ সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, মিয়ানমারে বিভিন্ন সশস্ত্র গোষ্ঠী সংঘাতে জড়িয়েছে। সেদেশে এখন অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। অত্যাচারিত লোকজনকে ঐ এলাকা থেকে সরে যেতে বলা হয়েছে। ফলে ভয় হয়, নিপীড়িতরা হয়তো আমাদের দেশের দিকে আসতে শুরু করবে। তবে জানতে পারেছি- তারা অন্যদিকে যাচ্ছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তবুও আমরা আমাদের সীমান্তে সতর্কতামূলক অবস্থা গ্রহণ করেছি। সীমান্ত দিয়ে সেদেশ থেকে আর কাউকে বাংলাদেশে ঢুকতে দেওয়া হবে না। মিয়ানমারের লোক আমাদের দেশে যেন না আসতে পারে সে বিষয়ে বাংলাদেশে সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবিকে সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে।

দ্বিতীয় দফায় শনিবার মিয়ানমারের যুদ্ধবিমান থেকে ছোড়া দুটি গোলা বান্দরবান সীমান্তবর্তী এলাকায় পড়ার প্রতিক্রিয়ায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, আমরা মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে এ বিষয়ে আলাপ করেছি। তারা আমাদের আশ্বস্ত করেছেন, তিনি তার সরকারের সঙ্গে এ নিয়ে আলাপ করবেন এবং এমন দুর্ঘটনা আগামীতে যেন না ঘটে সে বিষয়টি তারা দেখবেন। তবে এ বিষয়গুলো সরকার গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে।

প্রসঙ্গত, মিয়ানমারের দুটি যুদ্ধবিমান ও ফাইটিং হেলিকপ্টার থেকে ছোড়া গোলা বান্দরবান সীমান্তবর্তী এলাকায় পড়েছে। সেখানে দুটি গোলা অবিস্ফোরিত থাকায় হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ড এলাকায় শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে এসব গোলা এসে পড়ে।