ঢাকা, বুধবার, ৫ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২০শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কানাডায় ভয়াবহ ছুরি হামলায় নিহত ১০

কানাডায় অতর্কিত ছুরি হামলার ঘটনায় অন্তত ১০ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ১২ থেকে ১৫ জন। দেশটির মধ্যাঞ্চলীয় দুটি এলাকার অন্তত ১৩টি জায়গায় দুই ব্যক্তি ছুরি নিয়ে হামলা চালালে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে।
কানাডার পুলিশের বরাত দিয়ে সোমবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম বিবিসি এবং আলজাজিরা। সংবাদমাধ্যম দুটি জানায়, ভয়াবহ এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দেশটিতে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে।

জানা গেছে, কানাডার ওয়েলডন শহরের কাছে জেমস স্মিথ ক্রি নেশনে হামলা চালায় সন্দেহভাজন দুই ব্যক্তি। রয়্যাল কানাডিয়ান মাউন্টেড পুলিশের অ্যাসিস্টেন্ট কমিশনার ব্ল্যাকমোর জানান, স্থানীয় সময় রোববার (৪ সেপ্টেম্বর) জেমস ক্রি নেশনের দুই জায়গায় ছুরি নিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের ওপর হামলা চালানোর খবর মেলে। জোড়া ঘটনায় কমপক্ষে ১০ জন নিহত হয়েছে। একাধিক মানুষ আহত হয়েছেন।

এখনো পর্যন্ত ১৫ জনকে বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আরো বহু মানুষ আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। তারাও বিভিন্ন হাসপাতালে যাচ্ছেন। এ মূহুর্তে মোট আহতের সংখ্যা নিশ্চিতভাবে বলা যাচ্ছে না।

পুলিশ জানায়, দুই ঘাতকের নাম ডেমিন সেনডারসন (৩১) ও মাইলস সেনডারসন (৩০)। তবে তারা সম্পর্কে দুই সহোদর কিনা তা জানতে পারেনি পুলিশ।

প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো বলেছেন, সিরিজ এ ছুরি হামলাগুলো ‘ভয়াবহ ও হৃদয়বিদারক’ এবং সরকার পরিস্থিতি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছে।

টুইটারে তিনি লেখেন— ‘হামলায় যারা প্রিয়জনকে হারিয়েছেন এবং যারা আহত হয়েছেন, আমি তাদের সমবেদনা জানাচ্ছি।

জানা গেছে, জেমস স্মিথস ক্রি নেশনের বাসিন্দার সংখ্যা আড়াই হাজার। স্থানীয় সময় ভোর ৫টা ৪০ মিনিট নাগাদ ব্ল্যাকমোর পুলিশের কাছে প্রথম ফোন আসে যে, এক ব্যক্তি তার প্রতিবেশীকে ছুরি দিয়ে কোপাচ্ছেন। এরপরই একের পর এক ফোন আসতে শুরু করে। সবাই ছুরি দিয়ে হামলার অভিযোগই জানান। সঙ্গে সঙ্গে বিশাল পুলিশ বাহিনী পাঠানো হয় ঘটনাস্থলে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, অভিযুক্তরা প্রথমে বেশ কয়েকজনকে নিশানা বানিয়ে হামলা চালালেও পরে এলোপাতাড়ি হামলা চালায়। তাদের সামনে যারাই ছিল, তাদের ছুরি দিয়ে কোপানো হয়। গোটা ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে। জারি করা হয়েছে জরুরি অবস্থা।