ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এমপির পাশে দাঁড়ানোকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, পুলিশসহ আহত ৯

নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নে বিদ্যালয় ভবনের উদ্বোধনের সময় সংসদ সদস্যের পাশে দাঁড়ানোকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া এবং সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে তিন পুলিশসহ উভয় পক্ষের অন্তত ৯ জন আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ১২ রাউন্ড গুলি ছুঁড়ছে পুলিশ।

রোববার (৭ মে) বিকেল সাড়ে ৫টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত দফায় দফায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

আহতদের মধ্যে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জহির উদ্দিন স্বপন রয়েছেন। অপর আহতদের নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল বিকেলে জনতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুই তলা নতুন ভবন উদ্বোধন করতে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে আসেন নোয়াখলী-১ (চাটখিল- সোনইমুড়ি আংশিক) সংসদ সদস্য এইচ এম ইব্রাহিম। ভবনের নেমপ্লেটের ফিতা কেটে উদ্বোধনের সময় সামনে দাঁড়ান সাংসদ সদস্য এইচ এম ইব্রাহিম। এসময় সংসদ সদস্যের পাশে দাঁড়ানোকে কেন্দ্রে করে উপস্থিত আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি শুরু হয়। এরপর নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া এবং দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করলে সংঘর্ষকারীরা পুলিশ ও পুলিশের গাড়িতেও হামলা চালায়। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ গুলি ছুঁড়লে সংঘর্ষকারীরা পালিয়ে যায়।

চাটখিল উপজেলা আওয়ামী লীগ সাবেক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বলেন, সংসদ সদস্যের নির্দেশে ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ এবং অঙ্গ সংগঠনের সব নেতাকর্মী অনুষ্ঠানস্থলে আসেন। ভবন উদ্বোধনের সময় সংসদ সদস্যের পাশে দাঁড়ানোকে কেন্দ্র করে মোহাম্মদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান বাহালুল নেতাকর্মীদের ধাক্কাতে শুরু করেন। বিষয়টি নজরে আসলে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি তাকে এমন কাজ করা থেকে বিরত থাকতে বলেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে লোকজন নিয়ে সভাপতির ওপর হামলা চালান চেয়ারম্যান বাহালুল। পরবর্তীতে সভাপতিসহ আমরা বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে গিয়ে অবস্থান নেই। সেখানে গিয়েও হামলা চালান বাহালুল। এতে কয়েকজন আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করলে তারা ওসিসহ পুলিশের ওপরও হামলা চালায়। আমরা এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি।

এ বিষয়ে জানতে মোহাম্মদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান বাহালুলের মুঠোফোনে একাধিকবার চেষ্টা করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

চাটখিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গিয়াস উদ্দিন বলেন, দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ১২ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়েছে। সংঘর্ষে আমাদের তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। পুলিশের কাজে বাঁধা দেওয়া ও হামলার ঘটনায় মামলা দায়ের প্রস্তুতি চলছে।

সুজন/ মাসুদ