ঢাকা, বুধবার, ২৮শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

গণমাধ্যম সপ্তাহের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতির দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর নিকট স্মারকলিপি প্রদান বিএমএসএফ’র

জাতীয় গণমাধ্যম সপ্তাহের (১-৭মে) রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতির দাবিতে ১০ এপ্রিল বুধবার সারাদেশ থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট স্মারকলিপি পাঠিয়েছেন সাংবাদিকরা। বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম বিএমএসএফ’র কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে ঢাকা জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারকলিপির কপিটি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো: শাহিদুজ্জামান স্মারকলিপি গ্রহন করেন।

স্মারকলিপি প্রদানকালে বিএমএসএফ’র কেন্দ্রীয় সভাপতি শহীদুল ইসলাম পাইলট ও সাধারণ সম্পাদক আহমেদ আবু জাফর, সহ-সভাপতি মোফাজ্জল হোসেন, সহ-সম্পাদক মানিক ভুঁইয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, কেন্দ্রীয় সদস্য মাসুম তালুকদার, কবির নেওয়াজ, আনোয়ার হোসেন, ঢাকা জেলার যুগ্ম-সম্পাদক এম সোলায়মান, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু বকর তালুকদার, রফিকুল ইসলাম মীরপুরি, প্রচার সম্পাদক দীন ইসলাম, উপ-প্রচার সম্পাদক কৌশিক আহমেদ, সবুজ সরদার প্রমুখ।

সংগঠনটির পক্ষ থেকে বলা হয়, ২০১৭ সাল থেকে বিএমএসএফ প্রতিবছর ১-৭ মে ‘জাতীয় গণমাধ্যম সপ্তাহ’ দাবি করে সপ্তাহটি দেশব্যাপী উদযাপন করে আসছে। চলতি বছর ৩য়বারের মত সাংবাদিকদের এ সপ্তাহটি উদযাপিত হবে।

ইতিমধ্যে ফেডারেশন অব বাংলাদেশ জার্নালিষ্ট অর্গানাইজেশন এফবিজেও, অনলাইন সম্পাদক পরিষদ, বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যান সংস্থা বিএসকেএস সহ বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠন এবং মিডিয়া একমত পোষন করেছে।

বিএমএসএফ’র পক্ষ থেকে আরো বলা হয়েছে, দেশে যেমন শিক্ষা সপ্তাহ, মৎস মৎস্য সপ্তাহ, স্বাস্থ্য সপ্তাহ, পুলিশ সপ্তাহ, ফায়ার সার্ভিস সপ্তাহ, বৃক্ষরোপন সপ্তাহ, জ্বালানী সপ্তাহ, বিদ্যুৎ সপ্তাহ, পুষ্টি সপ্তাহ, দূর্ণীতি প্রতিরোধ সপ্তাহ, ভ্যাট সপ্তাহ, সমবায় সপ্তাহ, প্রাণী সম্পদ সপ্তাহ, পানি সপ্তাহ, ট্টাফিক সপ্তাহ, ভুমি সপ্তাহ, ইন্টারনেট সপ্তাহ, সঞ্চয় সপ্তাহ, আয়কর সপ্তাহ, সমাজসেবা সপ্তাহ, আয়কর সপ্তাহ সহ রয়েছে অগনিত নানা দিবস। কিন্তু দূর্ভাগ্য হলেও সত্যি যে, তথ্য অধিদপ্তরের নিজস্ব কোন দিবস কিংবা সপ্তাহ নেই। আমরা সারাদেশের সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে প্রতিবছর ১ থেকে ৭ মে জাতীয় গণমাধ্যম সপ্তাহ উদযাপনের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি চাই।

প্রতিবছরের ন্যায় এবছরও ১লা মে র‌্যালী দিয়ে সপ্তাহটির শুভ সূচনা করা করে আলোচনা সভা, সাংবাদিক প্রশিক্ষন কর্মশালা, সনদপত্র বিতরণ, কুইজ প্রতিযোগিতা ও বৃক্ষরোপন কর্মসূচী শেষে ৭ মে ঢাকায় জাতীয় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।