ঢাকা, বুধবার, ২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গৃহবধূকে বালিশ চাপায় হত্যার অভিযোগ, স্বামী-শ্বশুর-শাশুড়ি পলাতক

লক্ষ্মীপুর: লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে যৌতুকের দাবিতে সোনিয়া আক্তার (২২) নামে এক গৃহবধূকে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার (৯ এপ্রিল) সকালে সোনিয়ার মা ফাতেহা বেগম এ অভিযোগ করেন।

এদিকে ঘটনার পর থেকেই সোনিয়ার স্বামী মো. সাগর প্রকাশ হেজু, শ্বশুর মো. নুরনবী ও শাশুড়ি রিনা বেগম পলাতক রয়েছেন।

 

নিহত সোনিয়া রামগতি উপজেলার চর আলগী ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের চর আলগী গ্রামের মো. জামালের মেয়ে।  তাইফা আক্তার নামে এক বছর বয়সী একটি কন্যা সন্তান রয়েছে তার।

সোনিয়ার পরিবার জানায়, প্রায় দুই বছর আগে চর আলগী ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা সাগরের সঙ্গে পারিবারিকভাবে সোনিয়ার বিয়ে হয়। বিয়ের পর জানা যায় সাগর নির্দিষ্টভাবে কোনো কাজকর্ম করে না। এলাকায় বখাটেদের মতো চলাফেরা করে। বিভিন্ন সময় সোনিয়াকে চাপ দিয়ে দুই লাখ ৭০ হাজার টাকা যৌতুক নিয়েছে। সম্প্রতি আরও দুই লাখ টাকা যৌতুকের জন্য চাপ সৃষ্টি করে। যৌতুকের টাকার জন্যই রোববার (৭ এপ্রিল) সকালে সোনিয়াকে তার স্বামী সাগরসহ শ্বশুর ও শাশুড়ি বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করেছে।

সোনিয়ার মা কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, হত্যার পর রোববার সকাল ১১টার দিকে মরদেহ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রেখে পালিয়ে যায় তার স্বামীসহ অন্যান্যরা। খবর পেয়ে আমরা মরদেহ উদ্ধার করি। সোমবার (৮ এপ্রিল) দুপুরে ময়নাতদন্ত শেষে বিকেলে মেয়ের দাফন করা হয়েছে।

রামগতি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল ওদুদ বলেন, আমরা মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন না আসা পর্যন্ত মৃত্যুর আসল কারণ বলা যাচ্ছে না। থানায় আপাতত অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। তবে পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়নি।