ঢাকা, সোমবার, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

টঙ্গীতে মরহুম আব্দুল হান্নান মতির পরিবারকে ঘর করে দেয়ার উদ্যোগ নিলেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপি

টঙ্গী থানা আওয়ামীলীগ অফিসের অফিস সহকারী মরহুম আব্দুল হান্নান মতির পরিবারকে জমি ক্রয় করে ৪ রুম বিশিষ্ট সেমি পাকা ঘর নিমাণ করে দেয়ার উদ্যোগ নিলেন গাজীপুর ২ আসনের সংসদ সদস্য, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব মো: জাহিদ আহসান রাসেল। জমি ক্রয় করে সেমিপাকা ঘর নির্মাণ করার জন্য নগদ ১৪ লাখ টাকা গতকাল রাতে মরহুম আব্দুল হান্নান মতির স্ত্রী শামসুন্নাহার বিনা, মেয়ে শারমিন আক্তার ও ছেলে অনিক সরকারের হাতে টাকা হস্তান্তর করা হয়েছে। টাকা হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব মো: জাহিদ আহসান রাসেল। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, গাজীপুর মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান মতি, গাজীপুর সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. এ বি এম ইসমাইল হোসেন খান, মহানগর আওয়ামীলীগের সদস্য আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীন বিএ, টঙ্গী থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রজব আলী, টঙ্গী আঞ্চলিক শ্রমিকলীগের সভাপতি ও নিউ অলিম্পিয়া টেক্সটাইল মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মতিউর রহমান বিকম, টঙ্গী থানা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি আলহাজ্ব মনির আহমেদ, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৪৭নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের আহ্বায়ক আলহাজ্ব মো: আনোয়ার হোসেন, সদস্য সচিব আহসান উল্লাহ, যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুল আজিজ, শুক্কুর আলী মাতাব্বর, গাজীপুর মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন, টঙ্গী থানা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি কে এম নাসির উদ্দিন, গাজীপুর জজকোর্টের স্পেশাল পিপি এড. মো: শাহজাহান, সাতাইশ স্কুল এন্ড কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি ফিরোজ খান, শিলমুন আব্দুল হাকিম মাস্টার উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান মাষ্টার, টঙ্গীস্থ বৃহত্তর ফরিদপুর জনকল্যাণ সমিতির সভাপতি কে এম শাহ আলম, আওয়ামীলীগ নেতা আনোয়ার হোসেন, শাহ আলম ডালী রানা, আবু হানিফ মিলন, যুবলীগ নেতা মনির হোসেন সাগর, আব্দুর রহমান, ছাত্রলীগ নেতা শাখাওয়াত হোসেন সুজন প্রমুখ। এ সময় যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব মো: জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, আব্দুল হান্নান মতি আওয়ামীলীগের দুর্দিনে আওয়ামীলীগ পার্টি অফিসকে পাহাড়া দিয়েছেন। তিনি সকল নেতাকমীর্র বাড়ি চিনতেন। কোন প্রোগ্রাম থাকলে দুর্দিনে মিছিল মিটিংয়ের কথা তিনি নেতাকমীর্দের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খবর পৌঁছাতেন। আজ আব্দুল হান্নান মতি দীর্ঘ এক বছর হলো মারা গেছেন। তার একটি ঘর নেই, দীর্ঘদিন সে ভাড়া বাসায় বসবাস করে আসছেন। তাই দলীয় নেতাকমীর্দের সহযোগিতায় আমি তাকে দেড় কাঠার একটি প্লট কিনে দিয়ে ৪ রুমের একটি সেমিপাকা ভবন নির্মাণ করে দেয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করেছি এবং মরহুম আব্দুল হান্নান মতিনের এক মেয়ে শারমিন আক্তারকে টঙ্গী সরকারি হাসপাতালে চাকুরী দিয়েছি এবং তার ছেলেকে অনার্স অথবা ডিগ্রি পাশ করার পরে আমি একটি সরকারি চাকুরী দেয়ার ব্যবস্থা করবো বলে আশা রাখি। এছাড়াও সবসময় এই পরিবারের সুখে দু:খে তাদের পাশে থাকবো।