ঢাকা, বুধবার, ৫ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২০শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে হারের প্রতিশোধ নিলো পাকিস্তান

ভারতকে হারেয়ে এশিয়া কাপে গ্রুপ পর্বের প্রতিশোধ নিলো পাকিস্তান। এশিয়া কাপে গ্রুপ পর্বের লড়াইয়ের পর সুপার ফোরে আজ মুখোমুখি দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারত ও পাকিস্তান। হাই ভোল্টেজ ম্যাচটি পাঁচ উইকেটে জিতে নিলো পাকিস্তান।

রোববার দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ভারতের করা ১৮১ রান ১৯.৫ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ছুঁয়ে ফেলে বাবরবাহিনী। আর সেটা সম্ভব হয় মোহাম্মদ রিজওয়ান ও মোহাম্মদ নাওয়াজ। তারা দুজন তৃতীয় উইকেটে ৪১ বলে ৭১ রান তুলে জয়ের ভিত গড়ে দেন। নাওয়াজ ২০ বলে ৪২ ও রিজওয়ান ৭১ রান করেন।

তার আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৮১ রান সংগ্রহ করে ভারত। এদিন ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ঝড় তোলেন রোহিত শর্মা ও লোকেশ রাহুল। তারা দুজন ৫ ওভারেই ৫৪ রান তুলে ফেলেন। এরপর রোহিত ও রাহুল আউট হন ২৮টি করে রান করে। তবে ওয়ান ডাউনে নামা কোহলি ব্যাট করেন ১৯.৪ ওভার পর্যন্ত। ৪৪ বলে তার করা ৬০ রানের ইনিংসে ভর করে ভারত ১৮১ রানের বড় সংগ্রহ পায়। এছাড়া দীপক হুদা ১৬ ও ঋষভ পন্ত ১৪ রান করেন। বল হাতে পাকিস্তানের শাদাব খান ৩১ রান দিয়ে ২টি উইকেট নেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

পাকিস্তান: ১৮২/৫ (১৯.৫ ওভারে)।
ব্যাটিং: খুশদীল ১৩* ও ইফতিখার ২*।
আউট: ২২/১ (বাবর ১৪), ৬৩/২ (ফখর ১৫), ১৩৬/৩ (নাওয়াজ ৪২), ১৪৭/৪ (রিজওয়ান ৭১), ১৮০/৫ (আসিফ ১৬)।
বোলিং: বিষ্ণোই ১/২৬, চাহাল ১/৪৩, ভুবনেশ্বর ১/৪০, পান্ডিয়া ১/৪৪, অর্শ্বদীপ ১/২৭।

ভারত: ১৮১/৬ (২০ ওভারে)।
ব্যাটিং: ভুবনেশ্বর ০* ও বিষ্ণোই ৮*।
আউট: ৫৪/১ (রোহিত ২৮), ৬১/২ (রাহুল ২৮), ৯১/৩ (সূর্যকুমার ১২), ১২৬/৪ (পন্ত ১৪), ১৩১/৫ (পান্ডিয়া ০), ১৬৮/৬ (হুদা ১৬), ১৭৩/৭ (কোহলি ৬০)।
বোলিং: রউফ ১/৩৮, শাদাব ২/৩১, নাওয়াজ ১/২৫, হাসনাইন ১/৩৮ ও নাসিম ১/৪৫।

ফল: পাকিস্তান ৫ উইকেটে জয়ী।

ম্যাচসেরা: মোহাম্মদ রিজওয়ান (পাকিস্তান)।

ফিরলেন রিজওয়ানও, চাপে পাকিস্তান:

হার্দিক পান্ডিয়ার ১৭তম ওভারের পঞ্চম বলে দলীয় ১৪৭ রানের মাথায় আউট হন মোহাম্মদ রিজওয়ান। ইনিংসের গোড়াপত্তন করতে আসা এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ৫১ বলে ৬টি চার ও ২ ছক্কায় ৭১ রানের ইনিংস খেলে যান। তার আউট হওয়ার সময়ও জিততে পাকিস্তানের প্রয়োজন ছিল ৩৫ রান। কিন্তু খুশদীল শাহ ও মোহাম্মদ আসিফ ১৭ বলে ৩৩ রান তুলে জয় নাগালে নিয়ে আসেন।

দারুণ খেলে ফিরলেন নাওয়াজ:

মোহাম্মদ রিজওয়ান ও মোহাম্মদ নাওয়াজের ব্যাটে ভর করে স্বপ্ন দেখে পাকিস্তান। ৬৩ রানের মাথায় দ্বিতীয় উইকেট হারানোর পর তারা ৪১ বলে ৭৩ তুলে দলীঅয় সংগ্রহকে ১৩৬ পার করে। এই রানে ভুবনেশ্বর কুমারের বলে আউট হন নাওয়াজ। তবে যাওয়ার আগে কাজের কাজ করে যান। মাত্র ২০ বলে ৬ চার ও ২ ছক্কায় ৪২ রান করে যান। রিজওয়ান অপরাজিত আছেন ৬৩ রানে।

দ্বিতীয় উইকেট হারালো পাকিস্তান:

দলীয় ২২ রানেই ফিরেন বাবর আজম। এরপর ফখর জামানকে সঙ্গে নিয়ে দলীয় সংগ্রহকে টেনে নিতে থাকেন রিজওয়ান। ফখরকে নিয়ে দ্বিতীয় উইকেটে ৩০ বলে তোলেন ৪১ রান। দলীয় ৬৩ রানের মাথায় যুজবেন্দ্র চাহালের বলে লং অনে বিরাট কোহলির হাতে ধরা পড়ে ফিরেন ফখর। ১৮ বলে ২ চারে ১৫ রান করে যান তিনি।

ব্যর্থ হয়ে আবারও ফিরলেন বাবর:

এশিয়া কাপটা ভালো যাচ্ছে না পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজমের। প্রথম ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে ১০ রান করে আউট হয়েছিলেন। এরপর হংকং-এর বিপক্ষে করেছিলেন ৯ রান। আজ সুপার ফোরের ম্যাচে ভারতের ছুড়ে দেওয়া ১৮২ রানের বিশাল টার্গেট তাড়া করতে নেমেও ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে বের হতে পারেননি তিনি। ১০ বলে ২ চারে ১৪ রান করে ফেরেন রবি বিষ্ণোইর বলে রোহিত শর্মার হাতে ক্যাচ দিয়ে।

পাকিস্তানকে ১৮২ রানের টার্গেট দিলো ভারত:

এশিয়া কাপের সুপার ফোরের ম্যাচে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৮১ রান সংগ্রহ করেছে ভারত। জিততে ১৮২ রান করতে হবে পাকিস্তানকে। ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ঝড় তোলেন রোহিত ও রাহুল। তারা দুজন ৫ ওভারেই ৫৪ রান তুলে ফেলেন। এরপর রোহিত ও রাহুল আউট হন ২৮টি করে রান করে। তবে ওয়ান ডাউনে নামা কোহলি ব্যাট করেন ১৯.৪ ওভার পর্যন্ত। ৪৪ বলে তার করা ৬০ রানের ইনিংসে ভর করে ভারত ১৮১ রানের সংগ্রহ পায়। এছাড়া দীপক হুদা ১৬ ও ঋষভ পন্ত ১৪ রান করেন। বল হাতে পাকিস্তানের শাদাব খান ৩১ রান দিয়ে ২টি উইকেট নেন।

শেষ মুহূর্তে আউট হলেন কোহলি:

ওয়ান ডাউনে নেমে ১৯.৪ ওভার পর্যন্ত ব্যাট করেন কোহলি। ৪৪ বল মোকাবিলা করে ৪টি চার ও ১ ছক্কায় ৬০ রান করে রান আউট হন।

ফিরলেন দীপক হুদা:

১৩১ রানেই ৫ উইকেট হারায় ভারত। এরপর জুটি বাঁধেন কোহলি ও দীপক হুদা। ষষ্ঠ উইকেটে তারা দুজন ২৪ বলে ৩৭ রান সংগ্রহ করেন। এই রানে ফিরেন হুদা। ১৬৮ রানের মাথায় নাসিমের বলে নাওয়াজের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন। ১৪ বলে ২ চারে ১৬ রান করেন তিনি।

পর পর ফিরলেন পন্ত ও পান্ডিয়া:

কোহলির সঙ্গে চতুর্থ উইকেটে ২৫ বলে ৩৫ রান তুলে আউট হন ঋষভ পন্ত। দলীয় ১২৬ রানের মাথায় গুগলিতে পরাস্ত হয়ে আসিফ আলীর হাতে ক্যাচ দিয়ে শাদাব খানের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন তিনি। ২ চারে ১৪ রান করে যান তিনি। নতুন ব্যাটসম্যান হার্দিক পান্ডিয়াও এসে বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। দলীয় ১৫১ রানের মাথায় মোহাম্মদ হাসনাইনের বলে শর্ট মিডউইকেটে মোহাম্মদ নাওয়াজের হাতে ধরা পড়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। কোনো রান করতে পারেননি তিনি।

তৃতীয় উইকেট হারালো ভারত:

রোহিত ও রাহুল ফেরার পর কোহলি ও সূর্যকুমারের জুটিটা বেশ প্রমিজিং হয়ে উঠছিল। কিন্তু ২১ বলে ২৯ রান তুলতেই ভাঙে এই জুটি। মোহাম্মদ নাওয়াজের করা ওভারের চতুর্থ বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে লংঅফে আসিফ আলীর হাতে ধরা পড়েন সূর্যকুমার। ১০ বলে ২ চারে ১৩ রান করে যান তিনি।

রোহিতের পর ফিরলেন রাহুলও:

রোহিত শর্মার পর ফিরলেন লোকেশ রাহুলও। উদ্বোধনী জুটিতে ৫১ রান তুলে আউট হন রোহিত। পাওয়ার প্লে শেষে ৬১ রানের মাথায় ফেরেন রাহু। শাদাব খানের করা সপ্তম ওভারের প্রথম বলে ডাউন দ্য উইকেটে এসে মারতে চেষ্টা করেন রাহুল। বল উঠে চলে যায় লং অনে। সেখানে মোহাম্মদ নাওয়াজ বল তালুবন্দি করেন। ২০ বলে ১ চার ও ২ ছক্কায় ২৮ রান করে আউট হন তিনি।

উড়ন্ত সূচনার পর ফিরলেন রোহিত:

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে উড়ন্ত সূচনা করে ভারত। অধিনায়ক রোহিত শর্মা ও লোকেশ রাহুলের ব্যাটে ভর করে ৫ ওভারেই তুলে ফেলেছে ৫৪ রান। তবে ষষ্ঠ ওভারেই প্রথম বলেই আউট হন অধিনায়কল হারিস রউফের করা বলে টপ এজ হয়ে বল আকাশে উঠে যায়। সেটি ধরতে ফখর জামান ও খুশদীল শাহ একসঙ্গে যান। অল্পের জন্য তাদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়নি এবং ক্যাচটি মিস হয়নি। সেটি অবশ্য তালুবন্দি করেন খুশদীল। রোহিত ১৬ বলে ৩ চার ও ২ ছক্কায় ২৮ রান করে সাজঘরে ফেরেন।

টস:

এশিয়া কাপের সুপার ফোরের হাইভোল্টেজ ম্যাচে ভারতের মুখোমুখি হয়েছে পাকিস্তান। টস জিতেছেন পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজম। তিনি ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। টস হেরে ব্যাট করবে ভারত। বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

ডিউ ফ্যাক্টরকে কাজে লাগাতে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বাবর। তারা আগের ম্যাচে হংকংকে ৩৮ রানে অলআউট করে পাওয়া দারুণ জয়ের মোমেন্টাম এই ম্যাচেও কাজে লাগাতে চায়।

পাকিস্তান দলে একটি পরিবর্তন আনা হয়েছে। ইনজুরিতে পড়া শাহনেওয়াজ ধানির পরিবর্তে একাদশে এসেছেন মোহাম্মদ হাসনাইন। অন্যদিকে ভারত দলে তিনটি পরিবর্তন আনা হয়েছে। হার্দিক পান্ডিয়া একাদশে ফিরেছেন। তার সঙ্গে একাদশে এসেছেন দীপক হুদা ও রবি বিষ্ণোই। ইনজুরিতে পড়া রবীন্দ্র জাজেদার পাশাপাশি একাদশে নেই দিনেশ কার্তিক ও আবেশ খান।

ভারতের একাদশ:
রোহিশ শর্মা (অধিনায়ক), লোকেশ রাহুল, বিরাট কোহলি, সূর্যকুমার যাদব, ঋষভ পন্ত (উইকেটরক্ষক), দীপক হুদা, হার্দিক পান্ডিয়া, ভুবনেশ্বর কুমার, রবি বিষ্ণোই, অর্শ্বদীপ সিং ও যুজবেন্দ্র চাহাল।

পাকিস্তানের একাদশ:
মোহাম্মদ রিজওয়ান (উইকেটরক্ষক), বাবর আজম (অধিনায়ক), ফখর জামান, ইফতিখার আহমেদ, খুশদীল শাহ, শাদাব খান, আসিফ আলী, মোহাম্মদ নাওয়াজ, হারিস রউফ, মোহাম্মদ হাসনাইন ও নাসিম শাহ।