ঢাকা, বুধবার, ২১শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন

নির্বাচনে পরাজিত হলে মেনে নেবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, আগামী নভেম্বরে অনুষ্ঠেয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তিনি পরাজিত হলে মেনে নেবেন। শুক্রবার প্রথমবারের মতো তিনি বলেন, নির্বাচনে যদি পরাজিত হই তাহলে শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তর করব।

তবে জাল ভোট নিয়ে তিনি শঙ্কা প্রকাশ করেন। যুক্তরাষ্ট্রের আগাম নির্বাচনী জরিপগুলোতে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেনের এগিয়ে থাকার আভাস মিলেছে। করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে ব্যর্থতা ও নানা কারণে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এবার পরাজয়ের কথা বলছেন মার্কিন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। খবর বিবিসি ও রয়টার্সের।

নির্বাচনে পরাজিত হলে মেনে নেবেন বলে অভিমত প্রকাশ করে রিপাবলিকান প্রার্থী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, তবে নির্বাচন অবশ্যই সুষ্ঠু হতে হবে। সঠিকভাবে ভোট গণনা করতে হবে। নির্বাচনে পরাজিত হলে আপনি কি শান্তিপূর্ণ ক্ষমতা হস্তান্তর করবেন?

এমন প্রশ্নের জবাবে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, ‘ইয়েস, আই উইল।’ তবে আমি চাই নির্বাচন সুষ্ঠু হোক। ফেডারেল নির্বাচন কর্মকর্তারা বলেন, ভোট জালিয়াতির কোনো আশঙ্কা নেই। মার্কিন নির্বাচন নিয়ে ন্যাট সিলভার ফাইভ থার্টিএইট ডটকমের ব্লগ সম্প্রতি এক জরিপের ফল প্রকাশ করেছে।

তাতে বাইডেনের জয়ের সম্ভাবনা ৮৭ শতাংশ। আর ডিসিশন ডেস্ক এইচকিউ জরিপে বর্ষীয়ান এই রাজনীতিকের জয়ের সম্ভাবনা ৮৩.৫ শতাংশ।

চার বছর আগে গত নির্বাচনের ১১ দিন আগে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (এফবিআই) পরিচালক জেমস কোনি ডেমোক্রেট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগের কথা জানান।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালে হিলারি ব্যক্তিগত ইমেইল সার্ভার ব্যবহার করেছিলেন, এমন অভিযোগে তদন্ত শুরু করে এফবিআই। এমন কোনো ঘটনা ট্রাম্পকে এবার নির্বাচনে হার থেকে বাঁচাতে পারে বলে বিবিসির খবরে বলা হয়। তবে তেমন কিছু ঘটেনি এখন পর্যন্ত। উল্টো ট্যাক্স না দেয়ার খবরে বিড়ম্বনায় পড়েছেন ট্রাম্প।

ডেমোক্রেটিক দলের প্রার্থী জো বাইডেনকে সমর্থন ক্যারোলাইনার : ডেমোক্রেটিক দলের প্রার্থী জো বাইডেনকে সমর্থন দিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্পের উপদেষ্টা ও নিউইয়র্কের সাবেক মেয়র রুডি গিলিয়ানির মেয়ে ক্যারোলাইনা রোজ গিলিয়ানি।

ভ্যানিটি ফেয়ার ম্যাগাজিনে লেখা এক প্রবন্ধে ক্যারোলাইনা এমন সমর্থন প্রকাশ করেন। আগামী নির্বাচনকে ঐতিহাসিক বলে আখ্যায়িত করে তিনি বলেন, এ ঐতিহাসিক নির্বাচনে আমাদের কেউ নীরব রাখতে সক্ষম হবে না।

তিনি আরও লিখেছেন, আমার বাবা রুডি গিলিয়ানি। আমরা রাজনীতি ও অন্যসব বিষয়ে দূরত্ব বজায় রাখি। আমার নামের শেষ অংশ গিলিয়ানিকে আমি আলাদা করেছি। সেভাবেই আমার জীবনকাল কাটিয়েছি।

তাই প্রকাশ্যে নিজেকে একজন গিলিয়ানি বলে পরিচয় দিতে আমি বিপরীত বোধ করি। কিন্তু আমি মনে করি এবার আমাদের নীরব রাখতে কেউই সমর্থ হবেন না। উল্লেখ্য, ক্যারোলাইনা রোজ গিলিয়ানি একজন পরিচালক, অভিনেত্রী ও লেখিকা।

অনুষ্ঠানে ট্রাম্পকে চাপে ফেলে আলোচনায় সঞ্চালক সাভানাহ : প্রেসিডেন্ট নির্বাচনকে সামনে রেখে সংবাদমাধ্যম এনবিসির অনুষ্ঠানে হাজির হন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

তবে প্রশ্ন করে চাপে ফেলে আলোচনায় উঠে এসেছেন অনুষ্ঠানের সঞ্চালক সাভানাহ গুথ্রি। ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবারের ওই অনুষ্ঠানে ট্রাম্পকে কার্যত চেপে ধরেছিলেন সাভানাহ।

ট্রাম্পের ঋণ, করোনা মোকাবেলায় নেয়া পদক্ষেপ এবং ডানপন্থী ষড়যন্ত্র নিয়ে একের পর এক প্রশ্নবাণ ছুড়ে মারেন তিনি। স্পষ্টভাবেই তখন ট্রাম্পকে অস্বস্তিতে পড়তে দেখা যায়।

অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার এক ঘণ্টারও কম সময়ের মধ্যে ট্রাম্পের প্রচারণা শিবির থেকে সাভানাহকে আক্রমণ করে পোস্ট দেয়া হয়। এতে দাবি করা হয়, তিনি জো বাইডেনের পক্ষ থেকে অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করতে এসেছেন।

গার্ডিয়ান জানিয়েছে, ট্রাম্পের প্রচারণা শিবির থেকে সাভানাহর আক্রমণের মুখে পড়াই প্রমাণ করে অনুষ্ঠানটি তার জন্য কতবড় দুঃস্বপ্নের মতো ছিল।