ঢাকা, শনিবার, ১৬ই জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২রা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আমেরিকার কংগ্রেস ভবনে হামলা, নিহত ৪

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জো বাইডেনের জয় আনুষ্ঠানিকভাবে অনুমোদন করার জন্য অধিবেশন চলার সময় ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থকরা আমেরিকার আইনসভা কংগ্রেস ভবনে হামলা করেছে। এ ঘটনায় চার জন নিহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আমেরিকার আইন-প্রণেতারা যখন নভেম্বরের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে জো বাইডেনের জয় আনুষ্ঠানিকভাবে অনুমোদন করার জন্য অধিবেশনে বসেন তখনই ট্রাম্পের শত শত সমর্থক কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটলে ঢুকে পড়ে। হামলাকারীরা ভাঙচুর চালায়। তারা পুলিশের ওপর হামলা করে। পুলিশ তাদের সরাতে পুরো ভবন অবরুদ্ধ করে ফেলে। পুলিশ পাহারা দিয়ে আইনপ্রণেতাদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়।

এ সহিংসতার ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৫২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। যার মধ্যে ৪৭ জনকে কারফিউ ভাঙার জন্য গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ওয়াশিংটন ডিসির মেট্রোপলিটান পুলিশ জানিয়েছে, তারা ৫টি বন্দুক জব্দ করেছে। হামলায় কয়েকজন পুলিশ সদস‌্য আহত হয়েছেন। তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এদিকে, জো বাইডেন ঘটনাকে একটি ‘বিদ্রোহ’ বলে আখ্যায়িত করেন বলেছেন, ‘ট্রাম্পকে এখনই কোনো জাতীয় টিভি চ্যানেলে গিয়ে এই হিংসা থেকে মানুষকে বিরত থাকতে আহ্বান করা উচিত।’

তবে ট্রাম্প একটি ভিডিও বার্তায় তার সমর্থকদের বাড়ি ফিরে যেতে অনুরোধ করেছেন।

এ ঘটনার পর যৌথ অধিবেশন স্থগিত হয়ে যায়। তবে রাতে আবার তা শুরুর ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এর আগে জর্জিয়ার দুটি সিনেটের আসন জিতে যায় ডেমোক্র্যাটরা। এর ফলে সিনেট ডেমোক্র্যাটদের নিয়ন্ত্রণে চলে এলো। ডেমোক্রেটিক পার্টির দুই প্রার্থী রাফায়েল ওয়ারনক ও জন ওসফ সিনেটে নির্বাচিত হয়েছেন।

ক্যাপিটলে হামলার পর বিশ্বনেতারা এর তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। খোদ রিপাবলিকান পার্টির একাধিক গুরুত্বপূর্ণ নেতা এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। নেব্রাস্কার রিপাবলিকান সিনেটর বেন স্যাসি বলেছেন, ‘এটা একটা কুৎসিত দিন।’