ঢাকা, শুক্রবার, ২৫শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ঈদের ছুটি ৩ দিন, যে যেখানে আছেন সেখানেই থাকবেন

এবার পবিত্র ঈদুল ফিতরে সরকারি ছুটি তিনদিন। করোনা সংক্রমণ রোধে এখন যে যেখানে আছেন তাকে সেখানেই ঈদের ছুটি কাটাতে হবে। করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় লকডাউনের (বিধি-নিষেধ) মধ্যেই উদযাপিত হবে ঈদ।

নিজ নিজ কর্মস্থলে (অধিক্ষেত্রে) ঈদুল ফিতরের ছুটিতে অবস্থানের নির্দেশনা দিয়ে চলমান বিধিনিষেধ (লকডাউন) বাড়িয়ে বুধবার (৫ মে) প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

এতে বলা হয়, লকডাউন চলাকালে ১৬ মে পর্যন্ত সব সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্বশাসিত ও বেসরকারি অফিস এবং ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ঈদের ছুটিতে আবশ্যিকভাবে নিজ নিজ কর্মস্থলে (অধিক্ষেত্রে) অবস্থান করবেন।

একদিন আগে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, সরকারি ও বেসরকারি ক্ষেত্রে এবার ঈদের ছুটি তিনদিন। কেউ এর বাইরে ছুটি দিতে পারবে না। আমাদের প্ল্যান ছিল একদিন ছুটি দেওয়ার। চাঁদ দেখা সাপেক্ষে ঈদের ছুটির দুদিন শুক্র ও শনিবারই মনে হচ্ছে যাবে।

তিনি বলেন, ঈদের সময় যে যেখানে আছেন সেখানেই থাকবেন। লোকজন যাতে কোনোভাবেই মুভ করতে না পারে। ঢাকা না ছাড়তে পারে। কারণ ঢাকা হচ্ছে করোনার উচ্চ সংক্রমণশীল এলাকা। ৮০ শতাংশ সংক্রমণই হয় ঢাকায়। তাছাড়া ভারতের বিষয়টি আমাদের পর্যবেক্ষণ করতে হচ্ছে। সেজন্য আমরা সতর্ক অবস্থানে আছি।

‘ঢাকা থেকে বা ঢাকার আশেপাশে থেকে শ্রমিকরা যদি ঈদের সময় অন্য জায়গায় চলে যায় তবে ম্যাসাকার হবে। সেজন্য আমরা চাচ্ছি সবাই কর্মস্থলেই থাকুক’, বলেন প্রতিমন্ত্রী।

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে বুধবার মধ্যরাত থেকে চলমান লকডাউন ১৬ মে মধ্যরাত পর্যন্ত বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার।

এর আগে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় গত ৫ এপ্রিল ভোর ৬টা থেকে ১৪ এপ্রিল ভোর ৬টা পর্যন্ত লকডাউন বা বিধি-নিষেধ ঘোষণা করে সরকার। পরে ১৪ এপ্রিল থেকে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত এক সপ্তাহের জন্য কঠিন লকডাউনে যায় সরকার। সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় লকডাউন ২২ এপ্রিল থেকে ২৮ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত বাড়ানো হয়। সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় লকডাউন বাড়িয়ে ২৮ এপ্রিল থেকে ৫ মে পর্যন্ত করা হয়। করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না আসায় চলমান লকডাউন আরেক দফা বাড়িয়ে ৫ মে মধ্যরাত থেকে ১৬ মে পর্যন্ত করা হয়। সর্বশেষ করোনা রোধে লকডাউন ৫ মে মধ্যরাত থেকে বাড়িয়ে ১৬ মে মধ্যরাত পর্যন্ত করা হয়েছে।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১৩ বা ১৪ মে দেশে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হওয়ার কথা রয়েছে।