ঢাকা, সোমবার, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

দেশে টিকার নিবন্ধন ৪ কোটি ছুঁই ছুঁই

দেশে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রতিরোধক টিকা নিবন্ধনকারীর সংখ্যা ৪ কোটি ছুঁই ছুঁই। মঙ্গলবার পর্যন্ত মোট ৩ কোটি ৯৮ লাখ ৫৬ হাজার ২৪১ জন টিকা গ্রহণের জন্য নিবন্ধন করেছেন।
এদের মধ্যে জাতীয় পরিচয়পত্রের মাধ্যমে ৩ কোটি ৯৩ লাখ ২৪ হাজার ৫৩৮ জন ও পাসপোর্টের মাধ্যমে ৫ লাখ ৩১ হাজার ৭০৩ জন নিবন্ধন করেছেন।

স্বাস্থ্য অধিদফতর সূত্রে আরো জানা গেছে, নিবন্ধনকারীদের মধ্যে মঙ্গলবার পর্যন্ত মোট টিকা নিয়েছেন ৩ কোটি ১৫ লাখ ৯৭ হাজার ৩২০ জন। এদের মধ্যে প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছেন ১ কোটি ৯৮ লাখ ৪১ হাজার ২৯২ জন আর দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিয়েছেন ১ কোটি ১৭ লাখ ৫৬ হাজার ২৮ জন।

দেশে চলতি বছরের ২৭ জানুয়ারি টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজধানীর কুর্মিটোলার ৫০০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালে ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট উৎপাদিত অক্সফোর্ডের অ্যাস্ট্রাজেনেকার (কোভিশিল্ড) টিকাদানের মাধ্যমে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।

এদিকে শুরুর দিকে দেশে কেবল কোভিশিল্ডের টিকা দেওয়া হলেও পরবর্তীতে ফাইজার, মর্ডানা ও সিনোফার্মসহ মোট চার ধরনের টিকা দেওয়া হচ্ছে।

জানা গেছে, গত ২৭ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া টিকাদান কর্মসূচিতে চার ধরনের টিকার মধ্যে ৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সর্বোচ্চ সংখ্যক কোভিশিল্ডের ১ কোটি ১৯ লাখ ৫৩ হাজার ১৮৯ ডোজ টিকা দেওয়া হয়। এর মধ্যে প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ৬৫ লাখ ৮৮ হাজার ২৬ জনকে আর দ্বিতীয় ডোজ পেয়েছেন ৫৩ লাখ ৬৫ হাজার ১৬৩ জন।

এদিকে সবচেয়ে কম সংখ্যক টিকা দেওয়া হয়েছে ফাইজারের। এ টিকা দেশে মাত্র ১ লাখ ৮৫১ জনকে দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে প্রথম ডোজের ৫৬ হাজার ২৩৩ জন ও দ্বিতীয় ডোজের ৪৪ হাজার ৬১৮ জন রয়েছেন।

এছাড়া সিনোফার্মের ১ কোটি ৫৫ লাখ ২২ হাজার ২৮৪ ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে প্রথম ডোজের ১ কোটি ৬ লাখ ৩৩ হাজার ৩৫২ জনকে ও দ্বিতীয় ডোজের ৪৮ লাখ ৮৮ হাজার ৭৫২ জন রয়েছেন।

আর মর্ডানার ৪০ লাখ ২০ হাজার ৯৯৬ ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে প্রথম ডোজের ২৫ লাখ ৬৩ হাজার ৫০১ জন ও দ্বিতীয় ডোজে ১৪ লাখ ৫৭ হাজার ৪৯৫ জনকে এ টিকা দেওয়া হয়।

গত ৭ সেপ্টেম্বর থেকে রাজধানীসহ সারাদেশে নিয়মিত টিকার পাশাপাশি গণটিকার দ্বিতীয় ডোজের কার্যক্রম শুরু হয়। প্রথমদিনে নিয়মিত ও গণটিকা কর্মসূচির আওতায় সারাদেশে টিকা নিয়েছেন আরো ৩০ লাখ ১৬ হাজার ৭০৬ জন। এদের মধ্যে প্রথম ডোজ নিয়েছেন ২ লাখ ২৫ হাজার ৬৭৮ জন ও দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ২৭ লাখ ৯১ হাজার ২৮ জন।

প্রথম ডোজ গ্রহণকারীদের মধ্যে পুরুষ এক লাখ ১৭ হাজার ৭৩৫ জন ও নারী এক লাখ ৭ হাজার ৯৪৩ জন। আর দ্বিতীয় ডোজ গ্রহীতাদের মধ্যে পুরুষ ১৪ লাখ ৭৮ হাজার ১২০ জন এবং নারী ১৩ লাখ ১২ হাজার ৯০৮ জন।