ঢাকা, সোমবার, ২৫শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

তিন দিনে সোয়া লাখ অবৈধ হ্যান্ডসেট বন্ধ করল বিটিআরসি

দেশে অনিবন্ধিত বা অবৈধ মোবাইল সেট বন্ধের কার্যক্রম শুরুর প্রথম তিন দিনে ১ লাখ ২৫ হাজার সেট বন্ধ করা হয়েছে। ন্যাশনাল ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিটি রেজিস্টারে (এনইআইআর) নিবন্ধন না থাকায় এসব হ্যান্ডসেট নেটওয়ার্কে যুক্ত হতে দেয়নি নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশন (বিটিআরসি)।
সংস্থাটির ভাইস চেয়ারম্যান সুব্রত রায় মৈত্র এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, আমরা ১ অক্টোবর থেকে চূড়ান্তভাবে অনিবন্ধিত মোবাইল বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু করেছি। এখন আর কোনো আনঅফিসিয়াল বা অবৈধ হ্যান্ডসেট নেটওয়ার্কে যুক্ত হবে না।

সুব্রত রায় মৈত্র আরো বলেন, তিন মাস পরীক্ষামূলক কার্যক্রম শুরুর পর ১ অক্টোরব থেকে বিটিআরসি অনিবন্ধিত নতুন মোবাইল হেন্ডসেট বন্ধ করা শুরু করে।

এদিকে বিটিআরসি জানিয়েছে, অক্টোবরের আগ পর্যন্ত যত হ্যান্ডসেট নেটওয়ার্কে যুক্ত হয়েছে সেগুলো সয়ংক্রিয়ভাবে নিবন্ধিত হয়ে গেছে। এমনকি দেশে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের উৎপাদিত সেট এবং বিদেশ থেকে আমদানি করা মোবাইল সেটও এনইআইআরে এ সংরক্ষিত রয়েছে।

বিটিআরসির তথ্যানুযায়ী, প্রথম তিন দিনে মোট ৩ লাখ ৪৯ হাজার ৬৫২টি সেট তাদের নেটওয়ার্কে নতুন শনাক্ত হয়। এর মধ্যে নেটওয়ার্কে নতুন যুক্ত হয়েছে ২ লাখ ২৪ হাজার ৮২৭টি মোবাইল। তবে নেটওয়ার্কে যুক্ত হতে চেয়েও পারেনি ১ লাখ ২৪ হাজার ৮৬১টি হ্যান্ডেসেট।

এনইআইআর সিস্টেমের মাধ্যমে বিটিআরসির ডাটাবেজে মোবাইল হ্যান্ডসেটের ইন্টারন্যাশনাল মোবাইল ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিটি (আইএমইআই) নম্বর সংরক্ষিত থাকে। ১ জুলাই থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পরীক্ষামূলকভাবে এনইআইআর চালু হয়। পরে গত ১ অক্টোবর পূর্ণাঙ্গভাবে চালু হয়েছে।

বিটিআরসি আরো জানায়, ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এনইআইআর ডেটাবেজে স্বয়ংক্রিয়ভাবে প্রায় ৪৪ কোটি হ্যান্ডসেটের আইএমইআই নম্বর নিবন্ধিত হয়। এর মধ্যে প্রায় সাড়ে ২২ কোটি বর্তমানে নেটওয়ার্কে সচল হয়েছে। প্রায় ২২ কোটি বৈধ হ্যান্ডসেট নেটওয়ার্কে সচল হওয়ার অপেক্ষায় আছে। এগুলো মূলত বৈধভাবে উৎপাদিত ও আমদানি করা যেগুলো বিক্রির অপেক্ষায় আছে।